কৃষ্ণচূড়া আলস‍্য কাটিয়ে নববধূর মতো লজ্জায়

ss

যদি মনে পড়ে // সীমা প্রধান চক্রবর্তী 

 কখনো যদি আমায় মনে পড়ে 
 একটা না হয় মোমের বাতি জ্বেলো 
 নিত্যদিনের হাজার কাজের ফাঁকে 
 মিথ্যে করেই একটু বেসো ভালো। 
 হলোই বা তোমার অন্য কেউ প্রিয় 
 স্বপ্নে না হয় আমায় সাথে নিও 
 আছে যতো রোজের বাস্তবতা 
 ক্ষণিকের তরে ভুলেই না হয় যেও। 
 দেখিনি তোমায় বহু যুগ হলো 
 তবু বন্ধ চোখে তোমার মুখটা ভাসে 
 তোমায় ঘিরে আমার অনুভূতি 
 সবুজ হয়ে লুটায় নরম ঘাসে। 
 প্রথম যখন তোমায় দেখি আমি 
 তখন তুমি কলম নিয়ে হাতে 
 কাটছিলে দাগ হাজার হিজিবিজি 
 একা তুমি কেউ ছিল না সাথে। 
 হয়তো ছিল অশান্ত তোমার মন 
 একবার শুধু দেখলে নয়ন তুলে 
 সেই ক্ষণ টা ভাবলে পরে আজও 
 নশ্বর এই জীবন টা যাই ভুলে। 
 এক দেখাতেই অনেক প্রতিশ্রুতি 
 পাঠিয়েছিলে পাখির ঠোঁটে ভরে 
 নাম টা জানার হয়নি তো অবকাশ 
 হারিয়ে গেলে কোথায় হঠাৎ করে। 
 তোমার সাথে চাঁদের কথা হতো 
 মেঘ বৃষ্টিও তোমায় ভালবাসে 
 আজও যখন তাকাই আকাশ পানে 
 দেখি তোমার মুখ চাঁদের ঠিক পাশে। 
 তোমায় ভেবে কবিতা লিখি রোজ 
 হোক না তোমার অন্য কেউ প্রিয় 
 বাস্তবে তুমি নাই বা এলে কাছে 
 স্বপ্ন রাজ্যে আমায় সাথে নিও। 
.
.
.

চিরকাল একটা বারান্দা ছিল

সায়ন চক্রবর্ত্তী
সব রঞ্জনা দের  বাড়ির দোতলায় 
চিরকাল একটা বারান্দা ছিল
ও পথ দিয়ে যেতে গেলেই চোখ চলে যেত
যদি একবার, একটি বার এলো চুলে….
নাহ্ আসেনি, দাঁড়ায় নি কেউ কোন দিন
এক গেলাস অল্প জল মেশানো  ভদকা 
কোথা থেকে এসে কানে কানে বলেছিল 
“‌‌‌‌‌‌ওরে গৃহ বাসি দ্বার খোল দ্বার খোল 
স্থলে জলে বনতলে…”
পরদিন হুঁস ফিরেছিলো 
কোনো এক হাসপাতালের বিছানায় 
ডাক্তার সেদিন সব বুঝেও 
কি যেন বুঝলোনা
আচ্ছা, সিটিস্ক্যান মেশিন টা কি
জগৎ সংসারের সব কথা বুঝেছিল কোনোদিন??
.
.
.

রাতের ট্রেন  //  সায়ন চক্রবর্ত্তী

রাতের ট্রেন কুয়াশায় মিশে গেছিললো কখন

প্লাটফর্ম পরেছিলো একা… 

প্লাটফর্ম শুধু  বোঝেনি  সেদিন 

ওটাই শেষ ছিলো শেষ দেখা … 

.

.

.

কৃপাণ

রং আলাপন  //   কৃপাণ মৈত্র 

এবারের রং আলাপন জমবেই।সব শীত বিদায়

নিয়েছে ঘাসেদের পায় পায়।নতুন পাতার উৎসব

ছড়ানো ছিটানো গাছেদের শাখায় শাখায়।
কৃষ্ণচূড়া আলস‍্য কাটিয়ে নববধূর মতো লজ্জায়
লাল হয়েছে, দখিন বাতাস গায় মেখে রোদ ভীরু
চাহুনিতে কত কুহুর আনাগোনা পাতার ডানায়।
চাঁদজোছনার গোপন আলাপ তারাদের সাথে।
অরণ‍্যঋষির চোখে বসন্ত  অপ্সরার চটুল নৃত‍্যভঙ্গ
মহুয়া মদিরা,শিহরণ শিরায় শিরায়।
                   
                         ২
এবারের রং আলাপন জমবেই।এখনো মেঘের
ডানায় পালক লাগেনি।ধুলো আর আবির
একাকার উষ্ণ সান্নিধ্য,অলির গুঞ্জন যেন
দেববালার নূপুরের শব্দ।সব এক হয়ে তুলবে
ঐক‍্যতান,রোমাঞ্চিত দেহপট শুধু অপেক্ষায়।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *