কালানুক্রমিক কবিবিন্যাস

স্বপন নন্দী

ভরসুট অন্তর্ভুক্ত হাওড়া জেলা আমাদের বাঙালি-সংস্কৃতির এক হৃদকমল। এই হৃদয়ের পাপডিতে কতাে না পুষ্পের মহিমা, মহিমার সৌরভ। আর সেই সৌরভে আমাদের সুবিনীত অহংকার। আমরা বিনম্রমুগ্ধ। প্রাচীন ও মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্য মূলত কাব্যসাহিত্য। চর্যাপদ থেকে সেই কাব্যের সূচনা। আমরা দেখবাে সেই সুপ্রাচীন কালে হাওড়াকে মননসমৃদ্ধ।

করেছেন কোন কোন কবিরা। সেই কবিদের কথা লিখতে গিয়ে, তাদের কাব্যের কথা। লিখতে গিয়ে যিনি দর্শন ন্যায়শাস্ত্রের মাধ্যমে কাব্যভাষ এনেছেন তাদের মধ্যে অগ্রগণ্য শ্রীধর আচার্য।

প্রসঙ্গতই সবিনয়ে উল্লেখ করা ভালাে, এই অধ্যায়ের শিরােনামে যে ‘কালানুক্রমিক’ শব্দটি ব্যবহার করা হয়েছে, যেহেতু কোনাে কোনাে কবিদের জন্মতারিখ পাওয়া সম্ভব হয়নি, সেক্ষেত্রে রচনাকালের ওপর নির্ভর করে তাদের ক্রমিক অবস্থানটি নির্ধারণ করা হয়েছে।

আবার জন্মস্থান ও রচনাকাল সবটাই ইতিহাস-বিস্মৃত হয়ে গেছে এমন কবিদের ক্ষেত্রে পূর্বাপর কবিদের অবস্থান বিবেচনা করা হয়েছে। এছাড়া কোনাে কোনাে কবির সম্বন্ধে তথ্য সংগ্রহের ক্ষেত্রে এই আলােচকের অনুসন্ধানের সীমাবদ্ধতাকেও স্বীকার নেওয়া ভালাে।

শ্রীধর আচার্য | সেকালীন ভূরসুট পরগণার, বর্তমান হাওড়া জেলার উদয়নারায়ণপুর ব্লকের অন্তর্গত ডিহিভূরসুট গ্রামে দশম শতাব্দীতে জন্মগ্রহণ করেন শ্রীধর আচার্য। তিনি আত্মপরিচয় জ্ঞাপনে বলেছেন :

‘অম্ভোরাশেরি বৈত স্নাৎ বভুর ক্ষিতি চন্দ্ৰমাঃ।

জগদানন্দ কৃদ বন্দ্যো বৃহস্পতি রিতি দ্বিজঃ ।।

৯৯১-৯২ খ্রিস্টাব্দে রচিত ‘ন্যায়কন্দলী’ সূত্রে আমরা জানতে পারি পালরাজাদের সময় ভূরিশ্রেষ্ঠী রাজবংশের প্রতিষ্ঠা হয়েছিল। সে-সময় শ্রীধরের পৃষ্ঠপােষক ছিলেন দক্ষিণ রায়ের অধিপতি ‘গুণারত্নাভরণ কায়স্থকুলতিলক’ ।

পরে হুসেন শাহের আমলে গড়ভবানীপুরের মুখটি বংশীয় চতুরানন নিয়ােগী ভূরসুট দখল করেন। ভূরসুটের প্রথম ব্রাহ্মণ রাজা চতুরাননের দৌহিত্র ফুলিয়ার কৃষ্ণরায়। তখন দিল্লির সম্রাট আকবর।

পরে প্রতাপনারায়ণ ভূরসুটের রাজা হন। শ্রীধরের অন্যান্য পুঁথি ‘অদ্বয়সিদ্ধি’, ‘তত্ত্ববােধ’, ‘তত্ত্বসংবাদিনী’ এবং সংগ্রহটীকা। প্রশস্তপাদের পদার্থ-ধর্ম-সংগ্রহ নামে বৈশেষিক সূত্রের যে ভাষ্য আছে, ন্যায়কন্দলী গ্রন্থ তারই টীকা। শ্রীধর-ভট্ট বােধহয় সর্বপ্রথম এই গ্রন্থে ন্যায় বৈশেষিক মতের আস্তিক্য ব্যাখ্যা দান করেন।

কবি , গবেষক স্বপন নন্দী  //  যোগাযোগ : 7699249928

 

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *