উত্তুরে হাওয়া লেখেনা অ-আ-ক-খ আর

fgj

বসন্ত -(নম্বর৭০৫৮)  // সত্যেন্দ্রনাথ পাইন

হে বসন্ত, কত দূরে তুমি?

দুয়ারে দাঁড়িয়ে আছে নবীন পাতা

   কেন তুমি ভয়ে আছ

       কিসের প্রত্যয়ে?

শীতের দাপট নেই, বাকদেবী ফিরে গেছে

    আসছে রং মাখা হোলির কৃতজ্ঞতা

উত্তুরে হাওয়া লেখেনা অ-আ-ক-খ আর

বৃষ্টি হয়েছিল শ্রীপঞ্চমীর রাতে উপস্থাপনের

       ঝিরিঝিরি

    ব্যথা জেগেছিল প্রেমিকার মনে

ছিপছিপে। ব্যথার রাজ্যে

      গরম কফির চুমুক

    অভিনেতার উগরানো প্রেম

      জানলা- দরজা খোলা

        লুচির গন্ধ নাকে

হৃদয় চায় কোকিলের কুহু ডাক

    আর তোমার পাঠশালায়

    পড়া নতুন বর্ণপরিচয়।

.
.
.

ভালবাসাই শেষশব্দ  //   ২৭ // মাধব মন্ডল

কি ভাল কি ভাল রে বাবা

বলে আর জাত নেয় ধুয়ে

আমি শুধু বিষন্ন চোখ

মজ্জা তো পড়েনি নুয়ে।

তোমার কি আমুদে হাসি

আয়লায় যেন কিছুই হয়নি

আমি সেই একাকী একক

কুকুরের ঘি সয়নি!

কি ছিলাম আর হয়েছি কি

কেউ কেউ মেলালো হিসাবও

আমি শুধু শ্বাসে শ্বাস

রক্তে রক্ত মিশাব।

তুমি কেন হার খেলে 

আদরের ডাল ভাত ফেলে

এক থালা ভেঙে দু’থালা হল

বলো তুমি কি পেলে !.

.

.

Albus Wordsworth এর লেখা Imagination কবিতার ভাবানুসারে  //    কল্পনা  //  রণেশ রায়

মেঘে ঢাকা কুয়াশাচ্ছন্ন আকাশ

আলোআঁধারের অবিশ্বাসে ভরা

উল্লসিত কোটি সূর্য  মিছিলে মিছিলে

নক্ষত্র জগতে তারার আলিঙ্গনে

জ্বলে ওঠে আগুন আকাশে

গভীরতর হয় অবিশ্বাসের ধোঁয়া।

চাঁদ উঠবে আকাশে এবার

ঘুঁচে যাবে আজের এ আঁধার

জ্যোৎস্নার আলোয় হাসবে আকাশ

নির্মল আকাশে পূর্ণিমার চাঁদ

কবির কল্পনায় আলোর চ্ছটা

নক্ষত্র মিলবে এসে চেতনায়

দূর হবে ধোঁয়াশা রাতের জ্যোৎস্নায়।.

.
.

ভালবাসাই শেষশব্দ  //   ২8  // মাধব মন্ডল

আজ এতটা ক্ষিদে পাচ্ছে

এতটাই যে কি বলব

অথচ তোমার মন চাচ্ছে

আমি চা বলব।

না চা না

গরম ভাতই হোক

অবেলা! হোক তা

যা খুশী ভাবুক লোক।

দেখো, কত কোটি মিনিট গেল

কোনদিন কিছু কি চেয়েছি

তোমার ইচ্ছাই মান্যতা পেল

বরাবর তোমার হাতেই খেয়েছি!

আজ অবেলায় খাওয়াতে

তুমি কেন করবে আপত্তি

এস একবার হাসি মুক্ত হাওয়াতে

প্রথম ও শেষবারের যা সত্যি।

.

.

ভালবাসাই শেষশব্দ  //   ২৯  // মাধব মন্ডল

কত কোটি সেকেন্ড কাটল

এই ভালবাসাবাসিতে

বাঁশ ডালে দোল খায়

সেই জোড়া ফিঙে।

লালে লাল ঠোঁট নিয়ে

বাড়িয়েছো অস্থির ভাব

বঙ্গোপসাগরের ঢেউ

শরীর করেছে গাপ।

আমার কি করার ছিল?

স্রোতের কি টান

বালি সরে যায়

সংসার সন্তান চাইলাম তাই।

বজ্রকীটকে মনে আছে?

তখনও আপনি ছিলাম আমি

বাঘের হিংস্র হিংসায়

প্রায় জড়িয়ে ধরেছিলে বাস্তব ভুলে।

.

.

.

On the Grasshopper and Cricket
BY JOHN KEATS এর কবিতার ভাবানুসারে কবিতা তুমি অবিনশ্বর  //  রণেশ রায়

কবিতা তুমি অবিনশ্বর

তোমার হোক জয়

তুমি জীবনের খেয়া বাও

তুমি বেঁচে থাক চিরন্তন

তোমার নেই ক্ষয় লয়,

কবিতা তুমি জীবনের গান গাও

বেজে ওঠে তোমার বাঁশরী

মুখর হয়ে ওঠে আকাশ বাতাস,

জন কোলাহলে পাহাড়ের উত্তুঙ্গে

জঙ্গলের নীরবতায় সমুদ্রের ঢেউয়ে  ঢেউয়ে

তোমার বাঁশির সুর বেজে ওঠে I

 

সূর্যের দহনে পাখিরা মরণোন্মুখ

তরুতলে শীতল ছায়ায় লুকায়,

কন্ঠে ফোটে না কলি, ঠিক তখনই

চারণ প্রান্তরে ঝোপ থেকে ঝোপে

গঙ্গা ফড়িং উড়ে বেড়ায়,

অন্ধকারে আলো জ্বলে, উষ্ম হয় বাতাস,

কবিতা গান হয়ে  ভেসে আসে হেথায়

শ্যমলিকা প্রান্তরের এ প্রান্ত থেকে ওপ্রান্তে;

গ্রীষ্মের উষ্মতায়  গেয়ে চলে গঙ্গাফড়িং

তার অফুরন্ত প্রাণ শক্তি নিয়ে

অসীম আনন্দে সে গেয়ে বেড়ায়,

উল্লাসে সে ক্লান্ত যখন

বিশ্রাম তার ঘাসের নম্র বিছানায়।

 

কবিতার বিশ্রাম নেই এ দুনিয়ায়

সে গেয়ে চলে তার রাগ সুর ছন্দ লয়ে,

নিঝুম নি:শব্দ শীতের রাতে

জনকোলাহল স্তব্ধ হয়ে যায়,

জ্বলন্ত  অগ্নিকুণ্ডে উষ্ম হয় ঝিঁঝিঁপোকা

স্তব্ধতা ভেঙে গেয়ে ওঠে গান

আকাশ মিটিমিটি তাকায়

কবিতা বেঁচে থাকে সে সংগীতে

নক্ষত্ররা জ্বলে ওঠে আকাশে

হারায় না কবিতা এ দুনিয়া থেকে

মরনজয়ী অবিনশ্বর কবিতা বাতাসে ভাসে।

.

.

.

সমাধি   //  সত্যেন্দ্রনাথ পাইন

তোমার চুমু, তোমার আলিঙ্গন

    যেন সমান্তরাল দূটো রেললাইন

    অন্তহীন প্রণয়ের সম্ভোগের

 সূর্যের তপ্ত শরীরপাত, কুঞ্জ বনের সর্বনাশা

        রুক্ষতার রোগ

লুটোপুটি অনূরাগ বিভ্রম

   অন্তরের ব্যথার টানাপোড়েন

      শুকনো অসিঞ্চন

আচমকা স্বতন্ত্র একাকীত্বে

     ছড়িয়ে পড়ে

       শরীরে মনে

   দীর্ঘ অদর্শনের জ্বালা সরিয়ে

     রচনা করে

ভয়ংকর সীমাহীন কনসেপ্ট

 আর, মৃত্যু রূপে ধরা দেয়

     যৌবনের সমাধি

গুঞ্জন তোলে বাঁশির বিস্মিত চেতন

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: